এখনো বেঁচে আছে মানবিকতা! টাকা ভর্তি ব্যাগ পেয়েও যাত্রীকে ফিরিয়ে দিলেন ট্রেকার চালক


স্টাফ রিপোর্টার সুদীপ্তা দত্ত: ক’রো’না ম’হা’মারী দাপটের ফলে দীর্ঘ অনেক দিন লকডাউন চলেছে। এরফলে অনেক মানুষ না খেতে পেয়ে মারা গেছেন আবার অনেকে অসৎ উপায়ে নিজেদের সংসার চালিতে বাধ্য হয়েছে।

অথাৎ তারা চু’রি ডা’কা’তি করে নিজেদের সংসার চালিয়েছেন। কিন্তু সম্প্রতি এমন একটি ঘটনা ঘটল যা সবার ভাবনাকে অবাক করে দিয়েছে। ঘটনাটি হল একজন ট্রেকার চালক তার যাত্রীর টাকা ভর্তি ব্যাগ না নিয়ে তাকে ফেরত দিয়েছেন।

ঘটনাটি ঘটেছে শান্তিপুর এলাকায় সেখানে এক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী সীমা ঘোষ তার বান্ধবীর সাথে শান্তিপুর পোস্ট অফিস থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। প্রথমে তিনি ট্রেকারে উঠেছিলেন তারপর সে টোটো করে বাড়ি ফিরে যান। কিন্তু গিয়ে দেখতে পারেন তার টাকার ব্যাগ নেই। সীমা দেরি না করে সঙ্গে সঙ্গে সে টোটো চালককে ফোন করে জানান সমস্ত ঘটনা। টোটো চালক স্ট্যান্ডে ফোন করেন যে, কোন ব্যাগ পাওয়া গেছে কিনা।

সে জানতে পারে সেই ট্রেকার চালক মিলন মল্লিক অনেক আগেই সীমা টাকা ভর্তি ব্যাগ স্ট্যান্ডে জমা দিয়ে দিয়েছেন। সীমার ব্যাগে প্রায় দুই থেকে তিন হাজার টাকা ছিল, মিলন বাবু সেই টাকা চাইলে নিতে পারত কিন্তু তিনি তা করেনি।

ট্রেকার চালক মিলনবাবু বলেছেন, তিনি তাঁর পরিবারের কাছ থেকে এমন শিক্ষা পায়নি যে কারোর টাকা চুরি করে বড় হতে। মিলনবাবু আরো বলেন যে, আমার কাছে আমার পরিবারের শিক্ষাই সবার আগে, এর থেকে বড় আর কিছুই নয়।

এই সম্বন্ধে স্ট্যান্ডের সভাপতি বিশ্বজিৎ বাবু বলেছেন, এর আগেও দুজন ট্রাক্টর চালক যাত্রীদের ব্যাগ চু’রি করে নিয়েছিলেন যার কারণে এখনও তাদের কোর্টে হাজিরা দিতে হয়। কিন্তু মিলন বাবু সে কাজটি করেনি বরং সে সততার সাথে মাথা উঁচু করে সীমা দেবীকে তার ব্যাগ তার হাতে তুলে দিয়েছেন।যা সত্যিই একটি গর্বদায়ক ঘটনা।

সীমা দেবীর এই সম্বন্ধে বলেছেন, ড্রাইভার কাকুকে আমি ধন্যবাদ জানাই, এরকম মানুষ আজকালকার যুগে সচরাচর দেখা যায়না। সীমা বলেন, যারা এই ড্রাইভার কাকুদের অনেক সময় অসম্মান করে ও অপবাদ দেয়, তাদের একবার অন্তত ভাবা উচিত এটাই আমার অনুরোধ।