সিন্ডিকেট ভাঙলেন প্রধানমন্ত্রী

সিন্ডিকেট ভেঙ্গে সব প্রতিষ্ঠান থেকে সরকারী হসপিটালগুলোর জন্য অক্সিজেন সরবরাহের নির্দেশ দিলেন প্রধানমন্ত্রী। আজ তিনি সিএমএসডি পরিচালক আবু হেনা মোরশেদ জামানকে এই নির্দেশনা দ্রুত বাস্তবায়ণের নির্দেশ দেন। এতে গত ৫ বছর ধরে চলা একটি সিন্ডিকেট ভেঙ্গে যাবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। গেল ৫ বছরে কোন দরপত্র প্রকাশ না করেই বিশেষ প্রতিষ্ঠান সিন্ডিকেটের মাধ্যমে অক্সিজেন সরবরাহ করে আসছিল।

শ্বা’সত’ন্ত্রের রোগ কোভিড–১৯–এ আক্রান্ত ব্যক্তিদের অবস্থা জটিল হলে কৃত্রিমভাবে অক্সিজেন দিতে হয়। সরকারি হিসাব বলছে, রোগী সামলাতে হাসপাতালগুলোতে অক্সিজেন সিলিন্ডার যা দরকার, আছে তার অর্ধেক। ঘাটতি আছে আনুষঙ্গিক সরঞ্জামেরও। বিশেষজ্ঞরা বলছিলেন, দ্রুত বিকল্প ব্যবস্থায় অক্সিজেন সরবরাহের সিদ্ধান্ত নিতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর এই সিদ্ধান্তে অনেকটা ঘাটতি পূরণ হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

করোনা চিকিৎসার জন্য রাজধানীতে ১৯টি এবং দেশের ৮টি বিভাগে আরও ৬৪টি হাসপাতাল বাছাই করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। জানা যায়, রাজধানীর বাইরে করোনার জন্য নির্ধারিত হাসপাতালগুলোতে অক্সিজেন সিলিন্ডার আছে ৩ হাজার ২০০টি এবং আনুষঙ্গিক সামগ্রী (অক্সিজেন মাস্ক, ফ্লোমিটার, চাবি, ট্রলি) আছে ২ হাজার ৭৩৯ সেট।

রোগীর চাহিদা অনুযায়ী অক্সিজেন সিলিন্ডার আরও দরকার ৩ হাজার ৪৫টি এবং আনুষঙ্গিক সামগ্রী ৩ হাজার ১৮৯ সেট। সরকারি হিসাবে রাজধানীর জন্য আরও কত অক্সিজেন সিলিন্ডার দরকার, তার উল্লেখ নেই। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দেশের অন্যান্য হাসপাতালের মতো রাজধানীতেও অক্সিজেন সিলিন্ডারের ঘাটতি রয়েছে।